Headphone Burn In Guide in Bangla | যেভাবে হেডফোন বার্ন ইন করবেন

বার্ন ইন কেম্নে করবেন তুলে ধরা হল, কিন্তু বার্ন ইন করে আসলেই কোন উপকার হয় কি না এইটা মনস্তাত্ত্বিক ব্যাপার। 

এয়ারফোন বার্ন ইন এই টার্মটা নিয়ে কদিন হল বেশ শোরগোল চলছে। সবাই চোখ গোল গোল করে দেখেন আর চিন্তা করেন। আমার শখের হেডফোন পুউড়া ফেলতে কয়, লেটস বার্ন দ্যা বার্ন ইন,

বার্ন ইন হেডফোনের বা এয়ার ফোনের ড্রাইভার তাদের ডিজাইন অনুযায়ী সেট করাকে বুঝায়। হেডফোন বা এয়ারফোন কিছু মেকানিকাল পার্ট দিয়ে বানানো হয়। ড্রাইভারের ডায়াফ্রাম বা মুভিং মডিউল ফ্যাক্টারী থেকে বের হবার পর ডিজাইন অনুযায়ী থাকতেও পারে আবার নাও থাকতে পারে। বার্ন ইন এই জিনিসটা কে কোলেবরেট করে অপ্টিমাল স্টেট এ নিয়ে আসে। সাউন্ড এতে হালকা পরিবর্তন হতে পারে আবার নাও পারে।

Headphone burn in


কিভাবে  বার্ন ইন  করবেন, How To Burn In Headphone

বার্ন ইন প্রোসেস টা খুব বেশি কমপ্লিকেটেড না। আপনার নতুন কেনা এয়ারফোন বা হেডফোনে গান প্লে করেই বার্ন ইন করতে পারবেন। মোটামুটি সব এয়ারফোন ৬ ঘন্টা করে ৪ থেকে ৫ দিন বার্ন করলেই হয়ে যায়।

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে এ জন্য কোন App ইন্সটল দিতে হবে না। দিনে বা রাতে pink noise বা white noise ইউটিউবে প্লে করে ৬ থেকে ৭ ঘন্টা এয়ারফোনে প্লে করে আপনি আপনার কাজ করবেন। এরপর এয়ারফোন কে রেস্ট দিন। ২৪ ঘন্টার সাইকেলে ৬-৭ ঘন্টা pink noise আর বাকি সময় রেস্ট। এভাবে ৩-৪ সাইকেল আপনার এয়ারফোনের জন্যে এনাফ।

যদি pink noise বা white noise না পান তবে নিজের কালেকশনে থাকা সফট গান গুলো দিয়ে একটা প্লেলিস্ট বানিয়ে কন্টিনিউয়াস প্লে করুন।

Suggested volume : 40-50%


কে বা কারা বার্ন ইন করবেন?

নতুন এয়ারফোন বা হেডফোন গুলোর জন্যে বার্ন ইন, দয়া করে জিজ্ঞেস করেন না, "ভাই আমার ২ মাস পুরাতন হেডফোন বার্ন করলে কি সাউন্ড ভাল হবে!" বার্ন ইন কেবল সাউন্ড টাকে একটু রিফাইন্ড করতে পারে, পুরপুরি সিগনেচার পরিবর্তন করতে পারবে না। অল্প পরিবর্তন আর আমুল পরিবর্তন দুইটা ভিন্ন জিনিস।


বার্ন ইন একটা মিথ

অনেকই আছেন যারা মনে করেন এই টার্ম টা একটা মিথ। কথাটা ১০০ সত্য না হলেও একেবারেই কিন্তু মিথ্যা না। তাই বলে আমরা কেন চেস্টা করে দেখব না! ব্যপার হল অনেক ভাল এয়ারফোন ফ্যাক্টরি থেকে বার্ন হয়ে, সঠিক মেজারমেন্ট হয়ে বের হয়। আবার অনেক ম্যানুফ্যাকচারার তাদের বুকলেটে বলেই দেয় "this product needs burn in" অনেক প্রোডাক্ট আছে যার জন্য ২০০ ঘন্টা বার্ন ইন লাগে। (shozy Zero, Audioquest nighthawk and so on) সবকিছু নির্ভর করছে আপনার পারস্পেক্টিভ এর ওপর। মানুষের মস্তিস্ক এমন একটা জিনিস, কোন কিছুতে সহজেই অভ্যস্ত হয়ে পরে। সুতরাং আপনার এয়ারফোনকে সময় দিন। আর শব্দ জিনিসটা সাব্জেক্টিভ। আপনি যেভাবে মিউজিক শোনেন আপনার বন্ধু সেভাবে শুনে না। মানুষের শ্রাব্যতার সীমা ২০ থেকে ২০ হাজার কিলোহার্টজ হলেও আপনি বলতে পারবেন না আপনি কতখানি শুনেন! সুতরাং আগে নিজে শুনে দেখুন তারপর পারচেজ ডিসিশন নিন। Headphone Burn in tutorial in Bangla. Thanks for reading the post.

Earphone বার্ন আসলেই কাজ হয় কি হয় না এইটা একটা ডিবেটের ব্যাপার! গান শুনতে থাকেন কাজ যা হবার হয়ে যাবে! আর যে এয়ারফোনের সাউন্ড এমনেই ভাল না, বার্ন করে সেটারে সুপার সাউন্ডিং বানানো যাবে না! একটা জিনিস বলে রাখি, কম দামী এয়ারফোন গুলোর ($50-$70) বেশি কিছু চেঞ্জ হয় না হইলেও অইটা নটিসেবল না! 

যাইহোক এই পোস্টা আপনার কাজে দিবে! একটানা প্লে করবেন না! ৫-৮ ঘন্টা প্লে করে আবার রেস্ট দিবেন! :) Otherwise ড্রাইভারের স্থায়ী সমস্যা হইতে পারে। 



হ্যাপি লিসেনিং। 

Pink noise link: https://www.youtube.com/results?search_query=pink+noise



Comments